সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

hepatitis-world-day.jpg

বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস জানুন হেপাটাইটিস প্রতিরোধের উপায়

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৪.৪-৭.৫ শতাংশ হেপাটাইটিস বি এবং ১-৩ শতাংশ সি ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত। হেপাটাইটিস সহজে প্রতিরোধ করা যায়। কিন্তু বিশ্বের অধিকাংশ লোকই প্রতিরোধের উপায় জানে না।

আজ ২৮ জুলাই বিশ্ব হেপাটাইটিস বা লিভার ইনফেকশন দিবস। হেপাটাইটিস বি ভাইরাস ও এর ভ্যাক্সিন আবিষ্কারক অধ্যাপক বারুচ ব্লুমবার্গের স্মরণে তাঁর জন্মদিনই দিবসটি পালিত হয়। এবছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘Prevent Hepatitis: It’s up to you’ অর্থাৎ ‘হেপাটাইটিস প্রতিরোধ: এটা আপনার উপর নির্ভর করছে’। সারাবিশ্বের ন্যায় আমাদের দেশেও দিবসটি পালিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী হেপাটাইটিস ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিরাময়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি বেসরকারি ব্যক্তি, সংস্থা, প্রতিষ্ঠানসহ সংশিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি বলেন, সকলের প্রচেষ্টায় প্রাণঘাতি এই ভাইরাস প্রতিরোধ করা সম্ভব।

ভাইরাস ঘটিত হেপাটাইটিস হচ্ছে হেপাটাইটিস এ, বি, সি, ডি এবং ই এর সমন্বয়ে ঘটিত রোগ যা স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী লিভার বা কলিজায় প্রদাহের সৃষ্টি করে। প্রতি বছর এর কারণে প্রায় ১.৫ মিলিয়ন লোক মারা যায়। সাধারণত হেপাটাইটিস বি ও সি’র দ্বারাই বেশি মৃত্যু হয়। সারাবিশ্বে প্রায় ৫০ কোটির বেশি মানুষ হেপাটাইটিস বি ও সি দ্বারা আক্রান্ত। কিন্তু ৬০-৭০ শতাংশের শরীরে নীরবে লিভার ইনফেকশন, লিভার সিরোসিস, লিভার ক্যান্সার, লিভার ফেইলিওর করছে। তাই এই ভাইরাস দুটিকে নীরব ঘাতক বলা হয়। বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৪.৪-৭.৫ শতাংশ হেপাটাইটিস বি এবং ১-৩ শতাংশ সি ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত। হেপাটাইটিস সহজে প্রতিরোধ করা যায়। কিন্তু বিশ্বের অধিকাংশ লোকই প্রতিরোধের উপায় জানে না। চলুন জানা যাক প্রতিরোধের উপায়।

  • অনিরাপদ রক্ত, ইনজেকশন ও একই সিরিঞ্জে একাধিক ব্যক্তিকে ঔষধ প্রয়োগ করলে হেপাটাইটিস হতে পারে। তাই এসব থেকে বিরত থাকতে হবে।
  • বছরে প্রায় ২ মিলিয়ন লোক অনিরাপদ ইনজেকশনের মাধ্যমে আক্রান্ত হয়। নিরাপদ সিরিঞ্জ ব্যবহার ও প্রত্যেকের জন্য আলাদা আলাদা সিরিঞ্জ ব্যবহার করতে হবে।
  • আনুমানিক ৭৮০০০০ লোক প্রতিবছর হেপাটাইটিস বি দ্বারা আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। টিকা প্রদানের মাধ্যমে এই মৃত্যুর পরিমাণ কমানো সম্ভব।
  • শরীরে হেপাটাইটিস আছে কিনা তা জানতে পরীক্ষা করে অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শে ঔষধ সেবন করতে হবে। হেপাটাইটিস বি এবং সি প্রতিকারে খুবই কার্যকরী ঔষধ সহজেই পাওয়া যায়।

হেপাটাইটিস সম্পর্কে সচেতন হোন। প্রতিরোধের উপায় জেনে সঠিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। হেপাটাইটিস থেকে রক্ষা পাবেন আশা করা যায়।

সূত্র: ওয়ার্ল্ড হেল্‌থ অর্গানাইজশন (ডব্লিউএইচও)।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

hepatitis, prevention, awareness, life, Diseases, Bangladesh, global, health