সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

BANvSA.jpg

লড়াই হবে ত্রিমূখী বাংলাদেশ এখন আত্মবিশ্বাসী

দঃ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশের চলমান সিরিজ লড়াইটা হবে সম্ভবতঃ ত্রিমূখী, যার এক পক্ষে থাকবে বাংলাদেশ অন্য পক্ষে থাকবে দঃ অফ্রিকা এবং উভয় দলেরই প্রতিপক্ষ হতে পারে অস্বাভাবিক গরম এবং বৃষ্টি।

২০০৮ সালের পর দীর্ঘ বিরতী শেষে ২টি T-20, ৩টি এক দিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ এবং ২টি টেষ্ট ম্যাচ খেলার জন্য দঃ আফ্রিকা ক্রিকেট দল গত মঙ্গলবার বিকেলে মাসব্যপি সফরে বাংলাদেশে এস পৌঁছেছে। তারা ইতোমধ্যেই ৩ জুলাই ফতুল্লা স্টেডিয়ামে বিসিবি একাদশের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচে সহজ জয় পেলেও সিরিজটি যে তাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে তাতে তাদের কোন দ্বিমত নেই।

গত বিশ্বকাপে ভাল খেলেছে বাংলাদেশ। তারপর পাকিস্তানকে হোয়াইট ওয়াশ এবং ভারতের সঙ্গে সিরিজ জয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ এখন আত্মবিশ্বাসের চুড়ায় অবস্থান করছে। যে কারণে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার আগে দঃ আফ্রিকার কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বাংলাদেশে সফরটা বেশ কঠিন হবে বলে তার ধারণা প্রকাশ করেছে, সেই সাথে তার দলের তরুণ খেলোয়ারদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, 'সব কিছুই পক্ষে আসবে তা আশা করাটা ঠিক হবে না'।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ তাদের মনোভাব বদলে ফেলেছে, তারা এখন অনেক আক্রমনাত্মক ক্রিকেট খেলছে। মনে হচ্ছে তাদের এখন নিজেদের উপর বিশ্বাস সৃষ্টি হয়েছে। এমন কি একথাও বলতে ভুল করেন নাই যে, বাংলাদেশের দর্শক, আবহাওয়া, উইকেটের ধরণ আর বাংলাদেশের বর্তমান ফর্ম বিবেচনায় তাদের জন্য সময়টা কঠিন হতে যাচ্ছে। বিশেষ করে দলে মুস্তাফিজের অন্তর্ভুক্তি এবং তার পারফর্মেন্সে তিনি বলেন, নতুন বিশ্বাসে আর নতুন কিছু স্কিলের সমন্বয় ঘটিয়ে তারা অনেক বেশী কার্যকর ও অনেক বেশী বিপজ্জনক দলে পরিণত হয়েছে।

দঃ আফ্রিকার T-20 দলের অধিনায়ক ফাফ ডুপ্লেসি এই বলে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন যে, ওয়ানডেতে বাংলাদেশ এখন সমীহ জাগানো পেস আক্রমন গড়ে তুলেছে। বাংলাদেশের পিচও এখন পেসার বান্ধব হয়ে উঠেছে। আর কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো মনে করেন, বাংলাদেশ সফরে তারা সবুজ উইকেট পাবেন না। তিনি বলেন, আমি মনে করি, উইকেট হবে উপমহাদেশের গড় পড়তা উইকেটের মতই।

তাদের এই সব আলাপচারিতা থেকে এটাই অনুমান করা যায় যে, তারা আমাদের দলকে কোন ভাবেই খাটো করে দেখছে না। তার উপর বাংলাদেশের বর্তমান গরম আবহাওয়া এবং বর্ষার বরিষণও তাদের জন্য স্বস্তির কারণ নাও হতে পারে। অর্থাৎ দঃ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশের চলমান সিরিজ লড়াইটা হবে সম্ভবতঃ ত্রিমূখী, যার এক পক্ষে থাকবে বাংলাদেশ অন্য পক্ষে থাকবে দঃ অফ্রিকা এবং উভয় দলেরই প্রতিপক্ষ হতে পারে অস্বাভাবিক গরম এবং বৃষ্টি।

ইতোমধ্যেই খেলার সময় সূচীতে খানিকটা পরিবর্তন এসেছে। যেমন ৫ ও ৭ জুলাই তারিখে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ষ্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিতব্য T-20 ম্যাচ দু’টি পূর্ব নির্দ্ধরিত সময় সূচী অনুযায়ী সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার পরিবর্তে শুরু হবে দুপুর ১ টায় এবং ১০ ও ১২ জুলাই একই ষ্টেডিয়ামে ওয়ানডে ম্যাচ দু’টি পূর্ব নির্দ্ধারিত সময় সূচী অনুযায়ী দুপুর ২.৩০ মিনিটের পরিবর্তে শুরু হবে দুপুর ১২ টায়, অনুরূপ ভাবে ১৫ জুলাই চট্রগ্রাম জহুর আহমেদ ষ্টেডিয়ামেও শেষ ওয়ানডে ম্যাচটি ২.৩০ মিনিটের পরিবর্তে শুরু হবে দুপুর ১২ টায়। তবে ২১ থেকে ২৫ জুলাই চট্রগ্রাম জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে প্রথম টেষ্ট ও ৩০ জুলাই থেকে ০৩ আগষ্ট শেষ টেষ্ট ম্যাচটি ঢাকা মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ষ্টেডিয়ামে পূর্ব নির্দ্ধারিত সময় সূচী অনুযায়ী শুরু হবে সকাল সাড়ে নয়টায়।

দঃ আফ্রিকার সঙ্গে চলমান সিরিজে ভাল ফলাফল করতে হলে অবশ্যই টোটাল ক্রিকেট খেলার কোন বিকল্প নেই। যদিও সাব্বির ভাল ফর্মে আছে, নাসিরও রানে ফিরেছে, সৌম্য সরকারও চমৎকার খেলছে কিন্তু তামিম, মুশফিক এবং সাকিব গত সিরিজে আমাদের প্রত্যাশার সবটা পূরণ করতে না পারাটা আমাদের মাঝে চিন্তার উদ্রেক করেছে বটে। সে অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটলে বিশেষ করে, ওয়ানডেতে হোয়াইট ওয়াশ না হোক, অন্তত সিরিজ জয় পাওয়াটা অসম্ভব নয়। টাইগাররা আমাদের প্রত্যাশা পূরণে সফল হবে এটাই আমাদের চাওয়া। তাদের জন্য রইল শুভ কামনা।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

Bangladesh, Cricket, south-africa, tour, tournament, series, t-20, test, tiger