সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

&MaxW=640&imageVersion=default&AR-150409682.jpg

অসহায় মানবতা ভয়ঙ্কর রুপে মানবপাচার

গণমাধ্যম সুত্রে জানা গেছে পাচার চক্রের সাথে চট্টগ্রাম বিভাগের কয়েকটি জেলার কয়েকশ দালাল জড়িত আছে। এরমধ্যে টেকনাফ থেকে শতাধিক বাক্তিকে গডফাদার ও পাচারকারী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে সংবাদ গণমাধ্যমে এসেছে।

সমুদ্রপথে  মানব পাচার কোনভাবেই ঠেকানো  যাচ্ছেনা। শক্তিশালী আন্তঃদেশীয় পাচারকারী চক্রের সাথে জড়িত দালালরা ভাল চাকরীর প্রলোভন দেখিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দরিদ্র পরিবারের বেকার যুবকদের সংগ্রহ করে পাচার করছে বিদেশে। বিনিময়ে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা। ভাগ্য অন্বেষণে স্বপ্নে  বিভোর এসব যুবক অবৈধ ও অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ সাগর পথে বিদেশের মাটিতে নিয়ে করছে অপহরণ। 

মুক্তিপণ না দিলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তারা হচ্ছে নির্মম হত্যার শিকার। থাইল্যান্ড, মালেয়শিয়া, মিয়ানমার, বাংলাদেশে বসবাসকারী, রোহিংগা আর স্থানীয় দালাল মিলে গড়ে তুলেছে মানব পাচারের সিণ্ডিকেট। সম্প্রতি থাইল্যান্ডের গহীন জঙ্গলে পাচার হওয়া মানুষের লাশ উদ্ধারের পর আবারো বিষয়টি গণমাধ্যমে জোরালো আলোচনায় এসেছে। তারপরও নির্মম বাস্তবতা হচ্ছে মানব পাচার হচ্ছেই ।

আইন শৃখলা বাহিনী, নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ড এর তৎপরতায় প্রায়ই অবৈধভাবে মালয়শিয়াগামী লোকজন উদ্ধার হয়। গণমাধ্যম সুত্রে জানা গেছে পাচার চক্রের সাথে চট্টগ্রাম বিভাগের কয়েকটি জেলার কয়েকশ দালাল জড়িত আছে। এরমধ্যে টেকনাফ থেকে শতাধিক বাক্তিকে গডফাদার ও পাচারকারী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে সংবাদ গণমাধ্যমে এসেছে। মানব পাচারকারি চক্রের প্রধানদের মধ্যে  অনেক মিয়ানমারের নাগরিক। অনিশ্চিত সাগরপথে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমাতে গিয়ে মানব পাচারকারী চক্রের তৈরি করা থাইল্যান্ডের জঙ্গলে টর্চার সেল এখন মালয়েশিয়াগামীদের মৃত্যুপুরীতে পরিনত হয়েছে। 

এ ধরনের অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ সমুদ্রযাত্রা থেকে লোকজনকে রক্ষা করতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সামাজিক, রাজনৈতিক নেতাসহ সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। পাশাপাশি দেশে প্রচুর কর্মসংস্তান সৃষ্টি করতে হবে। যাতে যুবকরা দেশেই চাকরির সুযোগ পায়। সমস্যার গভীরে আমাদের উঁকি দিতে হবে। কেন এসব যুবক বিপদসংকুল অনিশ্চিত গন্তব্যে পাড়ি দিচ্ছে, তার কারণ অনুসন্ধান করে সমাধানের পথও বের করা প্রয়োজন।


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

Human, Trafficking, Malaysia, Myanmar, Thailand, Bangladesh, Inhumanity