সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

imrul-kayes-cricket.jpg

রেকর্ডের পর রেকর্ড ৫৫ বছরের রেকর্ড ভাঙলেন তামিম-ইমরুল

দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম উইকেটে গড়েছেন সর্বোচ্চ রানের জুটি। বিচ্ছিন্ন হয়েছেন ৩১২ রানে। এর আগে প্রায় ৫৫ বছর আগে, ১৯৬০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথম উইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ ২৯০ রানের জুটি গড়েছিলেন কলিন কাউড্রে এবং জিওফ ফুলার।

এছাড়া ২০০৪ সালে ইংল্যান্ডের সাবেক দুই ওপেনার অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস এবং মার্কাস ট্রেসকোথিক গড়েছিলেন ২৭৩ রানের জুটি। শুক্রবার ২৭৩ রানে অবিচ্ছিন্ন থেকে দিন শেষ করার সময় নিশ্চয়ই বিশ্বরেকর্ডের কথা মাথায় ছিল তামিম ও ইমরুলের। শনিবার বিশ্বরেকর্ড গড়ার পথে দুজনেই পেয়েছেন ১৫০ রানের দেখা। ইমরুল ১৫০ রান করে ফিরে গেলেও তামিম ১৫৯ রান নিয়ে ক্রিজে রয়েছেন।

প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের চেয়ে ২৯৬ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। পরাজয়ের চোখ রাঙানি টাইগারদের সামনে। তবে তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েসের অসাধারণ, দুর্দান্ত, মহাকাব্যিক জুটিতে সেই চোখ রাঙানিকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেয় টাইগাররা। ওপেনিং জুটিতে ৩১২ রান তোলে বিশ্বরেকর্ড গড়েন এই দুই বাঁ-হাতি ওপেনার।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্বিতীয় ইনিংসে ওপেনিং জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এখন তামিম ও ইমরুলের দখলে। শনিবার এই দুজন ৩১২ রানের জুটি গড়ে ইতিহাসের পাতায় নাম লিখান। এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে কোনো ওপেনিং জুটি ৩০০ বা ততোধিক রান করতে পারেনি।

এর আগে গতকাল টেস্টের চতুর্থ দিনে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েন তামিম ও ইমরুল। ২০১৩ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে মোহাম্মদ আশরাফুল ও মুশফিকুর রহমানের করা ২৬৭ রানের রেকর্ড ভেঙে দেন এই দুজন। তাছাড়া বাংলাদেশের পক্ষে ওপেনিং জুটিতে সর্বোচ্চ ২২৪ রানের রেকর্ডও শুক্রবার পেরিয়ে যান এই দুই টাইগার ওপেনার।



এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

Cricket, Bangladesh, imrul, tamim, Innings, Record, 312