সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

দেশের খবর

জনস্বার্থে ডিজিটাল সেবা

চিকিৎসা সেবায় নতুন মাত্রা


যেকোনো সময় যেকোনো নম্বর থেকে ‘এক বাষট্টি তেষট্টি’ (১৬২৬৩) নম্বরে ফোন করে এমবিবিএস চিকিৎসকের পরামর্শ পাবেন রোগী ও স্বজনরা।স্বাস্থ্য বাতায়ন দেশের যেকোনো স্থানের রোগীদের প্রয়োজনে নিকটবর্তী সরকারি-বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স সেবা পেতেও সহায়তা করবে।


সাহিত্যিক ২৭ এপ্রিল ২০১৬, ২৩:১৬


এদেশে চিকিৎসাখাতে সাধারন মানুষের ভোগান্তির শেষ নেই ।ইচ্ছে থাকলেও চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে মানুষ প্রতিনিয়ত হোচট খাচ্ছে। জনসাধারনের চিকিৎসার ভোগান্তি কমাতে  বছরজুড়ে সার্বক্ষণিক স্বাস্থ্য পরামর্শের সুযোগ নিয়ে ‘স্বাস্থ্য বাতায়ন’ উদ্বোধন করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। এটি সরকারিভাবে পরিচালিত ‘হেলথ কল সেন্টার’ বা ‘হেলপ লাইন’ হিসেবে কাজ করবে।

যেকোনো সময় যেকোনো নম্বর থেকে ‘এক বাষট্টি তেষট্টি’ (১৬২৬৩) নম্বরে ফোন করে এমবিবিএস চিকিৎসকের পরামর্শ পাবেন রোগী ও স্বজনরা।

রোববার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে হেলপ লাইনের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।

নম্বরটিতে ‘মোটামুটি স্বাভাবিক কলরেটে’ই কথা বলা যাবে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়। শুধু স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য নয়, যেকোনো সরকারি, বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা বা হাসপাতাল-ক্লিনিক সংক্রান্ত বিষয়ে অভিযোগও করা যাবে এ সেন্টারে।

মন্ত্রী বলেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতেই ‘সরকারি হেলথ কল সেন্টার: স্বাস্থ্য বাতায়ন’। স্বাস্থ্য বাতায়ন দেশের যেকোনো স্থানের রোগীদের প্রয়োজনে নিকটবর্তী সরকারি-বেসরকারি অ্যাম্বুলেন্স সেবা পেতেও সহায়তা করবে।

স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মন্জুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সেখানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মো. নুরুল হক, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ওয়াহিদ হোসেন।

অনুষ্ঠানে ‘স্বাস্থ্য বাতায়ন’ সম্পর্কে বিস্তারিত জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন, এ ব্যবস্থার ফলে ল্যান্ড বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে এই নম্বরে ফোন করে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসকের পরামর্শসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যসেবা পাওয়া যাবে। কলরেট মোটামুটি স্বাভাবিক কল রেটের মতো। এভাবে স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কিত গ্রাহকদের যেকোনো অভিযোগ ও পরামর্শ গ্রহণ করা হবে এবং দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সেবাটির শতভাগ সাফল্য নিশ্চিতে কল সেন্টারে কর্মরত চিকিৎসক ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, সরকারি কল সেন্টারটি স্বাস্থ্যসেবা মানুষের হাতের মুঠোয় পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টায় প্রধানমন্ত্রীর আরও একটি যুগান্তকারী উদ্যোগ। এর মাধ্যমে মানুষ জরুরি বা যেকোনো স্বাস্থ্য বিষয়ক সমস্যায় পড়লে ঘরে বসেই সহজে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারবেন।

তিনি বলেন, গ্রামের ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাস্থ্যসেবাকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছেন। তার নির্দেশেই ‘১৬২৬৩’ ফোন নম্বর চালু করে এখন থেকে সরকার সেবাকে সাধারণ মানুষের হাতের লাগালে নিয়ে গেলো।

‘স্বাস্থ্য বাতায়ন’ নম্বরে কল করলে স্বাস্থ্য বিষয়ক যেকোনো তথ্য জানা যাবে। জানা যাবে, সরকারি বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা অথবা হাসপাতাল ও ক্লিনিক সংক্রান্ত অভিযোগ ও পরামর্শ।

এছাড়া ওয়েব সাইট (16263.dghs.gov.bd), ফেসবুক (Facebook.com/ shasthobatayon), ইমেইল (16263@mis.dghs.gov.bd) ও এসএমএস-এর (+৮৮-০১৫১১৩-১৬২৬৩) মাধ্যমেও সেবা পাওয়া যাবে।

সেন্টারের কার্যক্রম পরিচালনা করবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস)। যুক্তরাজ্যের ইউকেএইড’র অর্থায়নে সেবাটি চালু করেছে এ বিভাগ।

ডা. দীন মো. নুরুল হক বলেন, কেউ যেন অনুমান নির্ভরতায় বা না জেনে কোনো ওষুধ সেবন না করে, বিনা চিকিৎসায় বা অজ্ঞতায় কেউ যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সে লক্ষে কাজ করবে এ বাতায়ন।

মন্ত্রী বলেন, বাতায়ন মানে তো জানালা, সেটি যেন সেবার বাতাস দেয়, কখনো বন্ধ হয়ে না যায়, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। ডাক্তাররা ফোন ধরেই যেন নামটি বলেন। কারণ রোগী বা সাহায্যার্থী যেন কোনোভাবেই মনে না করে যে, তারা কোনো মেশিনের সঙ্গে কথা বলছেন।

এই বাতায়ন  যদি সাধারন মানুষের কাছে সঠিকভাবে তুলে ধরা যায় তাহলে চিকিৎসা সেবায় জনসাধারনের অনেক ভোগান্তি কমবে আশা করি। সাথে সাথে সাধারন মানুষ যেন স্বাস্থ্য বাতায়নের মধ্য ‍দিয়ে সুচিকিৎসা পেতে পারে সে ব্যাপারে সজাগ থাকা জরুরী। এই বাতায়ন যেন হয় সকলের আস্থা ও ভরসার কেন্দ্রস্থল । তাই মনিটরিং ও সততার সাথে করতে হবে।

ছবিটি প্রতীকী 


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

চিকিৎসা, নতুন-মাত্রা, অনলাইন-সেবা, কল, ইমেইল, স্বাস্থ্য, সরকার